বরিশালে নেই বীর মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থান !

0

বরিশালে নেই সরকার নির্ধারিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থান!

নিয়াজ মো./শেখ রিয়াদ মুহাম্মাদ নুর★★ ২০০০ সালের তৎকালিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কালজয়ী এক প্রজ্ঞাপন এ বলা হয়েছিল দেশের প্রতিটি জেলা,উপজেলা, ও মহানগরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্দিষ্ট কবরস্থান সংরক্ষণ করতে হবে। সেই প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, ২০০৪ সালে তৎকালিন বরিশালের মেয়র,অন্যতম কনিষ্ঠ মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান সরোয়ার বরিশালের সব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অব্যাহত দাবীর মুখে স্বাধীনতা দিবসে বি,এম স্কুল সংলগ্ন পুরাতন মুসলিম কবরস্থানকেই মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থান ঘোষণা দেন,এবং ৩৫ লাখ টাকার মাটি ভরাট করে। তবে ২০০৯ সালের সেই কবরস্থান পরিনত হতে থাকে পার্কে। তখনকার মেয়র শওকত হোসেন হিরন সাংবাদিকদের বলেন, কবরস্থান এর চারপাশে বিনোদনের জন্য রাস্তা রাখা হবে। পরবর্তীতে কবরস্থানটি “কাঞ্চন পার্কে” পরিনত হয়। গভীর অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে জমির কাগজপত্র সবখানেই এখনও কবরস্থান বলেই উল্লাখ করা আছে। ক্ষমতার অপব্যাবহার করে কবরস্থান কে পার্ক বানিয়ে দিলেও বরিশালের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থান রয়ে গেল ফাঁকা। বিষয়টি ১৭ই অক্টোবর ২০১৪ সালের প্রথম আলোর বরিশাল প্রতিনিধি সাইফুর মিরনের করা ভুল রিপোর্টে সাধারন মানুষ ও বিজ্ঞ আদালতকেও ভুল বুঝিয়েছেন । এ নিয়ে বি,সি,সি মেয়র কামাল ভি,ডি,ও একটি বক্তব্যে বলেন “বিষয়টি হাইকোর্টে রিট অবস্থায় আছে। তাই কোন মন্তব্য করবনা” । বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নেতার এ বিষয়ে কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব না হলেও বরিশাল মহানগর আ’লীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ্ বলেন, ” আমি মনে করি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থান এটাই হওয়া উচিৎ। কারন কাগজপত্র দেখে বুঝলাম এটা কবরস্থান। এ বিষয়ে সব ধরনের সাহায্য আমি করব”।
এদিকে বরিশালের কনিষ্ঠ বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বি,এন,পি নেতা মুজিবুর রহমান সরোয়ার বলেন, ” আমার রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় থাকার সময় এ কবরস্থানে মাটি ভরাটসহ অন্যান্য কাজ সম্পূর্ণ করেছি। আ’লীগ ক্ষমতায় এলে তখন এটিকে “উদ্যানে” পরিনত করেন শওকত হোসেন হিরন। আমার দাবী এখানে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থান হোক।”
ভি,ডিও বক্তব্যে দেখা যায়, বরিশালের সদর এম,পি,প্রয়াত মেয়রের সহধর্মিণী বলেন, ” সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বরিশালের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কবরস্থান দেয়া হোক। তবে ওই কান্চন পার্কেই কেন? অন্যত্রও করা সম্ভব।”
পরিবেশ অধিদফতর এর বিভাগীয় প্রধান বলেন, “পার্ক ভেঙ্গে কবরস্থান করা অসম্ভব। তবে, পূর্বেই এটি কবরস্থান থাকলে সে ক্ষেত্রে আমাদের কোন বাধা নেই।
সর্বশেষ, বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এর মনোনীত উকিল মজিবুর রহমান নান্টু বলেন, ” আমাকে এ বিষয়ে নতুন করে ভাবাতে সাহায্য করেছেন যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল হোসেন ফোরকানের সুযোগ্য সন্তান শেখ রিয়াদ নূর। এদের মাধ্যমে আমার চেতনা পুনরায় উজ্জিবীত হয়। আমি বি,সি,সি’র পক্ষে সাধ্যমত কাজ করে চলেছি।

Share.

About Author

Leave A Reply