৬ দফায় আমেনা বেগম

0

৬ দফায় আমেনা বেগম

শেখ রিয়াদ নুর[][] ১৯৬৬ সালে আওয়ামী লীগ এর কাউন্সিলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সভাপতি নির্বাচিত হন। সেই কমিটিতে মহিলা সম্পাদিকা নির্বাচিত হয়েছিলেন মরহুমা আমেনা বেগম।

৬ দফা কে কেন্দ্র করে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও সাধারণ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহমেদ কারাগারে নিক্ষিপ্ত হলে সহ সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

কিন্তু মিজান চৌধুরীও গ্রেপ্তার হলে আমেনা বেগম ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন। ১৯৬৬ সালের ২৭শে জুলাই আমেনা বেগমকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব প্রদান করা হয়। জাতির সেই ক্রান্তিকালে ও আওয়ামীলীগ এর গুরুত্বপূর্ণ মহূর্তে আমেনা বেগম স্বৈরাচারী আইয়ুব সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার চাপ সৃষ্টি করেন ও আন্দোলনকে আরও বেগবান করে তোলেন। তিনি ছয় দফা কর্মসূচির গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন ও দলের তৃনমূল আন্দোলনকারীদের সাথেও যোগাযোগ রক্ষা করেন। তার বলিষ্ঠ ভূমিকার কারনেই ‘মুসলিম লীগার’রা তখন স্লোগান দিত.. ‘তোমার আমার ঠিকানা আমেনা বেগমের বিছানা!’

১৯৬৮ সালের এগারো দফা আন্দোলন ও ১৯৬৯ সালের আইয়ুব বিরোধী সমাবেশেও তিনি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি তার দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগে তার গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম হয়েছিলেন এবং ১৯৭০ এর সমাবেশে সাধারণ সম্পাদকের পদ দাবী করেছিলেন কিন্তু তাকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়নি।

স্ক্রিনশট

তিনি না হয় একটু বেশিই চেয়েছিলেন; পরবর্তীতে তার রাজনৈতিক পথও হয়তো ভিন্ন ছিল! কিন্তু তাই বলে আওয়ামী লীগ ৬ দফা দিবস পালন করবে অথচ আমেনা বেগমের নামটা পর্যন্ত উচ্চারণ করবে না!

Share.

About Author

Leave A Reply