ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ফটো সাংবাদিক কাজলের জামিন নামঞ্জুর।

0

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ফটো সাংবাদিক কাজলের জামিন নামঞ্জুর।

অনলাইন ডেস্ক ** ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার ফটোসাংবাদিক ও দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজলের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।
বুধবার (২৪ জুন) ঢাকা মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মন্ডলের আদালতে (ভার্চুয়াল আদালত) তার আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর
করেন।
এর আগে ১০ মার্চ আলোচিত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকে জড়িয়ে মানহানিকর সংবাদ প্রকাশের অভিযোগে মানবজমিন পত্রিকার সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরীসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এ মামলাটি করেন মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শেখর।
মামলার অন্য আসামিরা হলেন- মানবজমিন পত্রিকার প্রতিবেদক আল-আমিন, ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারী শফিকুল ইসলাম কাজল, প্রিন্স ফাহিম, আরিফুল ইসলাম আরিফ, ফরহাদ খান, জুয়েল আহমেদ, মোহাম্মাদ মোসলেম, মিজানুর রহমান, মোর্শেদ আলম, কাকন আবু হানিফ, মো. রুবেল, আয়েশা আমান, মো. শামিম আক্তার, মো. সাত্তার মৃধা, মো. তৌফিক, মিলি হাসান, হাবিব আদনান, ঋষি কান্ত, মো. সোহেল হোসেন, ছালে আহমেদ, জসিম উদ্দিন জসিম, খাইরুল ইসলাম, হেদায়েতুল ইসলাম, মাহফুজ আহমেদ, এম এ মামুন, মো. হেলাল, সেলিম চৌধুরী, ইস্পাত মোহাম্মাদ, বেলায়েত হোসেন, মারুফ রাজু ও মকটেল হোসেন মুক্তি।

র্যাবের অভিযানে গত ২২ ফেব্রুয়ারি পাপিয়া, তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী (মতি সুমন) এবং তাদের দুই সহযোগী গ্রেফতার হন। এরপর মাদক ও অস্ত্র চোরাচালান, জমি দখল এবং ওয়েস্টিন হোটেলে নারীদের দিয়ে অসামাজিক কর্মকাণ্ডসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ আসতে থাকে নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক পাপিয়ার বিরুদ্ধে। তখন দল থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।
পাপিয়ার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর আসে ওয়েস্টিন হোটেলের প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুইট বরাদ্দ ছিল পাপিয়ার জন্য। সেখানে ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ, আমলা থেকে শুরু করে প্রভাবশালীদের সঙ্গে সময় কাটাতেন পাপিয়া। হোটেলে অবস্থানের সময় পাপিয়া কার কার সঙ্গে দেখা করেছেন বা তার কাছে কারা আসতেন, সেসব বিষয় নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোচনা শুরু হয়। পাপিয়ার কাছে কারা যেতেন তার একটি ভুয়া তালিকাও ঘুরতে দেখা যায় ফেসবুকে।

Share.

About Author

Leave A Reply