বরিশাল বিএম কলেজের সাবেক ভিপি মঈন তুষারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

0

বরিশাল বিএম কলেজের সাবেক ভিপি মঈন তুষারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা!

হাফিজুর রহমানঃ বরিশাল বিএম কলেজের সাবেক ভিপি প্রয়াত মেয়র হিরনপন্থী মঈন তুষারের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন নগরীর মোঃ আবুল হোসেন খান এর ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রাজিব হোসেন খান ।
অভিযোগসূত্রে জানাগেছে, গত (১৩সেপ্টেম্বর, ২০ইং) তারিখে সকাল ১১টার দিকে জেলা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিবের নিজ বাসায় বসে ফেইসবুক চলাতে গিয়ে দেখতে পান একটি ফেইজবুক পেইজ যাহার নানম “Barisal with a Mission” থেকে গত (২০ সেপ্টেম্বর,২০ইং) তারিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাজিবের নামে রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্ধেশ্যে রাজিবের বিভিন্ন ছবিসহ বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তি ও সহ-সভাপতি আতিকউল্লাহ মুনীম ও ছাত্রলীগের রাজপথের লড়াকু সৈনিক ছাত্রলীগ নেতা রইছ আহমেদ মান্না এবং বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা সাজ্জাত সেরনিয়াবাত এর ছবিও ব্যবহার করে একটি কু-রুচিপূর্ণ ভিডিও পোস্ট করে এবং লেখেন “শেরেবাংলার বংশধর”। বরিশাল নির্মানে এই চোরদের সহযোগীতা করুন লিখে এবং তাদের ছবির উপর কুকুরের ছবি দিয়ে পোষ্ট করে। তাহারা ব্যঙ্গ করে আরো লিখেছেন বরিশালের বাঘ আপনাদের দিয়েই বরিশাল Singapore হবে। এই রকম ছবি, ভিডিও এবং লিখাযুক্ত পোষ্ট দেওয়ার কারনে তাদের সামাজিক, রাজনৈতিক এবং বন্ধু মহলে, আত্মীয়-স্বজনের নিকট মান হানি হয়েছে। এছাড়াও বিবাদী মোঃ মঈন তুষার (সাবেক ভিপি) বরিশাল বিএম কলেজের বিনা অনুমতিতে আমাদের ছবি ব্যবহার করিয়া এবং ব্যঙ্গাত্বক ও অপমান জনক ছবি পোস্ট করে বিবাদী Barisal with a Mission আইডিতে যে ই-মেইল আইডি ব্যবহার করেছেন উক্ত আইডি টি হলো kbg4green@gmail.com উহা ছাড়া গুগলে উক্ত আইডি দিয়ে সার্চ দিলে অনলাইনে “Barishal with a Mission” এবং বাংলাদেশ বানী পত্রিকা একই পেইজে চলে আসে। যাহা অভিযোগের সাথে সংযুক্ত করা হয়েছে। যেহেতু বাংলাদেশ বানী পত্রিকার সম্পাদক উক্ত বিবাদী তাই উক্ত ই-মেইল খানা বিবাদীই ব্যবহার করেন এবং উক্ত ই-মেইল আইডি ব্যবহার করে Barishal with a mission নামের পেইজটি খুলে আমাদের বিরুদ্ধে অপমান জনক পোষ্ট করিয়াছেন। ঘটনার বিষয়ে পরিবারের সাথে আলাপ-আলোচনা করিয়া থানায় আসিয়া এজাহার দায়ের করিতে বিলম্ব হইলো বলে বাদী উল্লিখিত ঘটনার বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অফিসার-ইন-চার্জ, কোতয়ালী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগটি দায়ের করেন।

সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বিধি-২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫ (২)/২৬ (২)২৯ (১) আইনে মামলাটি হয়। কোতয়ালী মডেল থানার মামলা নং- ৪৩।

Share.

About Author

Leave A Reply